Dallywood

মুভি রিভিউঃ “যদি একদিন” (The Sacrifice)

Written by Moviendrama Team

মুভি রিভিউঃ “যদি একদিন” (The Sacrifice)
অভিনয়ঃ তাহসান, শ্রাবন্তী, রাইসা, তাসকিন, প্রমুখ
পরিচালকঃ মোস্তফা কামাল রাজ


“যদি একদিন” সিনেমা দেখে সবার মাথায় যে ব্যাপারটা সবথেকে বেশি আসবে তা হলো সিনেমার ট্যাগলাইনটি (The Sacrifice), এই শব্দটি ঘিরে কি দারুণ একটা গল্প তৈরি করা হয়েছে তা সিনেমাটি না দেখলে বুঝা যাবে না। সিনেমার প্রথম অংশে অনেকটা সময় নিয়ে গল্প আগাতে থাকলেও ২য় অংশ বেশ কিছু টুইস্ট ছিল। একের পর এক টুইস্ট পেয়ে দর্শক তাদের মতো করে সিনেমার গল্প ভাবতে থাকবে কিন্ত একটু পর দেখবে আরেকটা টুইস্ট এসে গল্পের মোড় ঘুরিয়ে দিচ্ছে। গল্পটি কখনো বাবা-মেয়ের সীমাহীন ভালাবাসার আবার কখনো বন্ধুত্বের কি দারুণ ডেফিনিশন। সিনেমাটায় বাবারা তার মেয়ের প্রতি তাদের পরম ভালোবাসার ঝলক দেখতে পাবেন। আবার সত্যিকারের বন্ধুরা তাদের বন্ধুত্বের জোর খুঁজে পাবেন।
.
দর্শক তাদের অনুমান অনুযায়ী এসে সিনেমার শেষাংশ যখন দেখবে দারুণ এক Sacrifice এর গল্প লুকিয়ে ছিল তখন সবার অবাক হতে হবে। এখানেই Mohammad Mostafa Kamal Raz ভাইয়ের অনবদ্য নির্মাণ কৌশল ফুটে উঠেছে।
আর যারা Tahsan ভাইয়ের চরিত্রে রোমান্টিক ব্যাপারটা ছাড়া অন্যকিছু ভাবতে পারেন না তাদের জন্য বলছি, হলে ঘিরে সিনেমাটি দেখুন এই ধারনা পাল্টে যাবে। বড় পর্দায় প্রথম কাজে তাহসান ভাই অনেক চমৎকার গুছিয়ে কাজ করেছেন। সেই সাথে মিষ্টি মেয়ে Srabanti Chatterjee যতোক্ষণ স্কিনে থাকেন ততক্ষণ সময়টা দারুণ উপভোগ্য করে তুলেন। সিনেমায় কোন নাচ বা একশন পাবেন না,কারন এটি বানানোই হয়েছে একটি সুন্দর গল্পের উপর ভিত্তি করে। গল্পে একশন ডিমান্ড করেনি তাই রাখাও হয়নি। তবে তাসকিন Taskeen Rahman আর তাহসান এর মধ্যেকার ঠান্ডা পরিবেশের ঘরোয়া একশন ভালো লাগবে। তাসকিনের লুক আর স্টাইলে তাকেও ভালো মানিয়েছে। শেষাংশে তাসকিন(জেমি) এর নাম বিষয়ক ব্যাপারে আপনাকে অনেক বেশি ইন্টারটেইন করবে।
তাহসানের মেয়ে চরিত্রে রাইসা(রুপকথা) তার ঐ বয়সে অনেক বেশি পরিণত কাজ উপহার দিয়েছে। রুপকথার দাদী চরিত্র সাবেরী আলমের সাথে তার খুনসুঁটি সবাইকে ভরপুর মজা দিবে। “যদি একদিন” সিনেমায় আরও একটি প্রশংসনীয় কাজ হলে সিনেমাটোগ্রাফি। পুরো সিনোমায় চমৎকার সব ক্যামেরা শট ছিল। 
সবমিলিয়ে পবিবারের সবাইকে নিয়ে দেখার মতোই একটি সিনেমা “যদি একদিন”
সিনেমাটার কিছু সংলাপ আপনার খুবই ভালো লাগবে। যেমন,
“আমার মা কি মিষ্টি ছিল?” এই প্রশ্নের উত্তরে বাবা-মেয়ে কে বলছেঃ “পৃথিবীর সব মা ই মিষ্টি হয়। তোমার মা ও অনেক মিষ্টি ছিল।”
.
সিনেমার গানগুলোও ভালো লাগার মতো ছিল। আর “লক্ষীসোনা” গানটি অলরেডি অনেক বেশি জনপ্রিয়তা পেয়ে গেছে। আশাকরি “যদি একদিন” সিনেমাটিও অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠবে। কারন সবমিলিয়ে এটি দারুণ সিনেমা হয়েছে বলে আমি মনে করি। বাকিটা আপনারা দেখে জানাবেন।
.
আমরা ভালো বাংলা সিনেমার পাশে থাকলে বাংলা সিনেমা অনেক দূর এগিয়ে যাবে। তাই সবাই হলে গিয়ে সিনেমা দেখুন তারপর সমালোচনা করুন। সবকাজে ভালোমন্দ ব্যাপারটা থাকবেই। একটি কাজ যেমন কারো কাছে ভালো লাগবে, তেমনি কারো কাছে ভালো নাও লাগতে পারে। তবে কাজটা মন দিয়ে দেখে বুঝে তারপর গঠনমূলক সমালোচনা করবেন। -ধন্যবাদ

রিভিউ লেখক:- Sohan Kuasha

Movie Trailer Link:-

Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of